গত এক দশকে আমাদের মাথাপিছু আয় দ্বিগুনেরও বেশি বেড়েছে

দেশের ৫০ শতাংশ মানুষ এখনো ব্যাংকিং সেবার বাইরে রয়েছে জানিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমান বলেছেন, এসব মানুষের কাছে ব্যাংকিং সেবা পৌছে দেয়ার লক্ষে ব্যাংকের নতুন শাখার অর্ধেক গ্রামে খুলতে হবে।

আজ রোববার সকালে রাজশাহীতে ব্যাংকিং সুপারভিশন কার্যক্রমের ওপর আঞ্চলিক সভার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর।
গ্রামে ব্যাংকিং সেবা চালুর পাশাপাশি মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সমপ্রসারণ এবং গ্রামে এজেন্ট ব্যাংকিং চালুর উদ্যোগ নেওয়া হবে বলেও জানান গভর্নর।

আতিউর রহমান বলেন, এর মাধ্যমে ব্যাংকের এজেন্টরা বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে ঋণ আদায় এবং ঋণের সার্বিক তদারক করতে পারবে।
এ সময় বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়েও কথা বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর।

তিনি বলেন, বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দার পরেও বাংলাদেশের আর্থিক খাত ভালো অবস্থানে রয়েছে। গত এক দশকে যেখানে গড় জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৫ শতাংশ ছিল তা এখন বেড়ে সাড়ে ৬ শতাংশের কাছাকাছি এসে দাঁড়িয়েছে। তিনি বলেন, গত এক দশকে আমাদের মাথাপিছু আয় দ্বিগুনেরও বেশি বেড়েছে। বাংলাদেশে সামষ্টিক অর্থনীতির মূখ্য সূচক যেমন আমদানি-রফতানি, রেমিট্যান্স প্রবাহ ও বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ব্যাপক পরিমাণে বেড়েছে।

গত এক দশকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ সাড়ে সাতগুন এবং রেমিট্যান্স সাড়ে চারগুনেরও বেশি বেড়েছে বলে জানান তিনি।

ব্যাংলাদেশ ব্যাংক আয়োজিত এ সভায় ব্যাংকিং খাতের সমস্যা ও সম্ভাবনার নানা দিক তুলে ধরা হয়। এতে অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং সুপারভিশন অ্যাডভাইজার গ্লেন টাস্কি, রাজশাহী শাখার মহাব্যবস্থাপক জান্নাতুল বাকিয়া ও বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক সনত্ কুমার সাহা উপস্থিত ছিলেন।