তনিমার আগেও সিইআরএন-এ দুই বাংলাদেশি গবেষক

ইউরোপে পরমাণু-গবেষণায় প্রথম বাংলাদেশি তনিমা তাসনিম অনন্যা–এমন একটি খবরে আপত্তি জানিয়েছেন বিলাস কান্তি পাল নামের আরেক গবেষক। তার দাবি, তনিমার আগেই  ইউরোপিয়ান অরগানাইজেশন ফর নিউক্লিয়ার রিসার্চ-এ (সিইআরএন) গবেষক হিসেবে কাজ করার কৃতিত্বটা তার ও  অন্তত আরো একজন বাংলাদেশির।

‘ইউরোপে পরমাণু (নিউক্লিয়ার) গবেষণায় প্রথম বাংলাদেশি তনিমা’ শিরোনামে গত ১২ জুন বাংলানিউজে খবরটি প্রকাশিত হয়। এতে বলা হয়, সম্প্রতি তনিমা তাসনিম অনন্যা  প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে সিইআরএন-এ গবেষণা করার জন্য নির্বাচিত হয়েছেন।
তার গবেষণার বিষয়বস্তু হিগস-বসন নামের এলিমেন্টারি পার্টিকেল সনাক্ত করা।

তবে এতে আপত্তি জানিয়ে বিলাস কান্তি পাল একটি ই-মেইল বার্তায় বাংলানিউজকে জানান, তিনি সিএনআরএন’র হয়ে তিন বছর ধরে কাজ করছেন। তার এ পর্যন্ত পাঁচটি প্রকাশিত ও একটি জমা দেওয়া গবেষণাপত্রও রয়েছে। বিলাস কান্তি আরও জানান, তিনি ছাড়াও আরেক বাংলাদেশি গবেষক সিইআরএন থেকে ২০১১ সালে গবেষণা সম্পন্ন করেছেন।
বক্তব্যের পক্ষে প্রমাণ হিসেবে সিইআরএন’র ওয়েবসাইটের একটি লিংক পাঠিয়েছেন বিলাস কান্তি পাল। তাতে আগে থেকেই প্রতিষ্ঠানটিতে যে বাংলাদেশি গবেষক সংযুক্ত রয়েছেন তার প্রমাণ রয়েছে।

বিলাস কান্তির দাবিটি অকাট্য হলে তনিমা তাসনিম অনন্যা প্রথম নন, বরং সিইআরএন-এ তৃতীয় বাংলাদেশি গবেষক।
এরই মধ্যে তনিমা যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত নাসার স্পেস টেলিস্কোপ সায়েন্স ইনস্টিটিউটে স্টার ফরমেশন নিয়ে তিন মাস গবেষণা করেছেন। ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে থিউরিটিক্যাল ফিজিক্সে এক বছর অধ্যয়ন শেষে বর্তমানে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ব্রিন মার কলেজের চতুর্থ বর্ষ অ্যাস্ট্রোফিজিক্সের ছাত্রী।

আর বিলাস কান্তি পাল বর্তমানে নিউইয়র্কের সাইরাকিউস বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যা বিভাগের পিএইচডি ক্যান্ডিডেট।