ইলিশ উৎপাদন বেড়েছে আড়াই গুণ

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু সংসদে জানিয়েছেন, গত দেড় দশকে দেশে ইলিশের উৎপাদন আড়াই গুণের বেশি (বা ১৫৯ দশমিক ৭৬ শতাংশ) বেড়েছে। ২০০২-০৩ অর্থবছরে যেখানে ইলিশের উৎপাদন ছিল ১ লাখ ৯৯ হাজার ৩২ মেট্রিক টন, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৫ লাখ ১৭ হাজার মেট্রিক টনে। আগামী ৫ বছরে ইলিশের উৎপাদন ৫ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিন টন ছড়িয়ে যাবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারি দলের সদস্য এম আদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনে তিনি আরো জানান, জাটকা ইলিশ ধরা নিষিদ্ধকরণ, প্রজননের সময় ইলিশ ধরা বন্ধসহ সরকারের নানামুখী পদক্ষেপে ইলিশের উৎপাদন বেড়েছে। মাছের উৎপাদন বাড়ানো আরো নানামূখী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের সদস্য মনজুর হোসেনের প্রশ্নের জবাবে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জানান, দেশে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৩৮ হাজার ৫৭১ মেট্রিক টন শুটকি উৎপাদিত হয়েছে। এর মধ্যে সামুদ্রিক শুটকির পরিমাণ ২৯ হাজার ৮২ মেট্রিক টন, যা দেশের উৎপাদিত মোট শুটকির প্রায় ৭৫ শতাংশ।

নদী ভাঙ্গন : ওয়ার্কার্স পার্টির সদস্য বেগম লুৎফুন নেসা খানের প্রশ্নের জবাবে জাহিদ ফারুক বলেন, দেশের বিভিন্ন নদীন ভাঙগনহতে জেলা, উপজেলা, পৌর, শহর, বাজার, হাট এবং ঐতিহাসিক ও জাতীয় জাতীয় জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানসমূহ রক্ষার্থে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রকল্প বাস্তবায়ন করে আসছে। এ লক্ষ্যে একটি মহাপরিকল্পনা গ্রহণের কাজ চলমান রয়েছে।

আওয়ামী লীগের নাছিমুল আলম চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, জলবায়ু পরিবর্তন ও প্রাকৃতিক দুর্যোগজনিত জুঁকির কারণে পানি সংকট মোকাবেলাসহ কাঙ্খিত উন্নয়নের দীর্ঘমেয়াদী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করছে সরকার। প্রকল্পটির নামকরণ করা হয়েছে বাংলাদেশ ব-দ্বীপ পরিকল্পনা-২১০০। এটি আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে বাস্তবায়নের জন্য ৮০টি প্রকল্প নেবে সরকার, যাতে প্রায় দুই হাজার ৯৭৮ বিলিয়ন টাকা ব্যয় হবে।